-->

Featured post

ফ্রিতে Payoneer মাস্টারকার্ড নিন খুব সহজে

আসসালামু আলাইকুম। কিছুদিন আগে popads নামক একটি ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে মাস্টারকার্ড অর্ডার করা যেত। কিন্তু সেই অফারটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকে...

যে ৩ ধরনের ওয়েব সাইট জনপ্রিয় বাংলাদেশের অনলাইন জগতে

 
প্রতিদিন একই ধারার টেক টিপস কিংবা ট্রিকস অথবা টিউটোরিয়াল লিখতে লিখতে আমি ক্লান্ত শ্রান্ত হয়ে পড়েছি। নিজেও চাই একটু ভিন্ন স্বাদ। কোন গবেষণামূলক বা মুক্ত মতের কিছু যে লিখব সেই সময় হয়ে উঠেনা। আজ জোর করেই সেরকম একটি লেখার টপিক বের করলাম। অনেকদিন ঠিক না অনলাইন জীবনের প্রায় প্রতিদিনই নিজের চোখে দেখা এবং বিশ্লেষণ করেছি আজকের টপিকটি। হুম, আজকের টপিক হলো, কোন ধরনের সাইটগুলো চলে বাংলাদেশে? আপনিও যদি অনলাইনের সাথে দীর্ঘদিন যুক্ত থেকে থাকেন এবং একটু খেয়াল করেন তবেই আপনি সহজেই ব্যাপারটি বুঝতে পারবেন। আমারো দীর্ঘ দিনের অনলাইন অভিজ্ঞতায় এবং নিজস্ব মতের ভিত্তিতে আজ লিখছি কোন ৩ ধরনের সাইট বেশি জনপ্রিয় আমাদের কাছে।

#১ সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট

দেশের সর্বসাধারন অনলাইন ইউজারের ভিত্তিতে বলছি, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট কাকে বলে সেটা জানা থাক আর নাই থাক ফেসবুক -কে চেনেন অনলাইনে সদ্য নতুন ব্যবহারকারীও! হ্যা, একটু চিন্তা করে দেখবেন কথাটি কতটুকু যৌক্তিক বলেছি? গ্রামের যে ছেলেটি নতুন ইন্টারনেট ব্যবহার করা শুরু করেছে সেও ইন্টারনেটে প্রবেশ করেছে ফেসবুকের হাত ধরে। অথচ সে একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ব্যবহার করেও হয়ত জানেনা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং কি! আসলে চরম বাস্তব এবং সত্য কথা হলো, বাংলাদেশের অনলাইন জগতে শীর্ষে এখন ফেসবুক। অ্যালেক্সা র‍্যাংকিং অনুযায়ী বলুন আর নিজের অভিজ্ঞতাতেই বলুন না কেন, বাংলাদেশে বর্তমানে ফেসবুক শীর্ষে। তবে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের মধ্যে আরও রয়েছে টুইটাল, গুগল প্লাস, লিংকড ইন ইত্যাদি। কিন্তু বাস্তবে বাংলাদেশে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের আধিপত্য বিস্তার করে আছে শুধুমাত্র ফেসবুক! বর্তমানে ফেসবুকের বাংলাদেশী ব্যবহারকারী সংখ্যা ১ কোটি ছাড়িয়েছে। এছাড়া অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট তো রয়েছেই!

#২ ফ্রি ডাউনলোড করার সাইট  

দেশে অনলাইন ইউজারদের একদম নতুন যারা আছেন তাঁদের লক্ষ্য করলেই বুঝবেন তারা ইন্টারনেটে মানে কি বুঝে। এমনও অনেকে আছেন যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন শুধু গান, মুভি, ভিডিও ডাউনলোড করার জন্য। ইন্টারনেট মানেই যেন ডাউনলোড! আহা ডাউনলোড রে! উদাহরণ হিসেবে ধরুন, টেকটিউনস হলো প্রযুক্তির ব্লগ সাইট। সেখানে দেখুন, প্রোগ্রামিং এর একটা টিউটোরিয়াল পোস্ট হলে কত ভিউ হয় আর একটা গান নিয়ে পোস্ট দিয়েই দেখেন না! ভিউয়ের সংখ্যা হাজারের পর হাজার ছাড়িয়ে যাবে। আমার নিজের ব্লগ সাইটটির কথাই ধরি, যত টিপস ট্রিকস নিয়ে পোস্ট দেই না কেন! একটা নাটক ডাউনলোডের পোস্ট দিলে তা ঐ টিপস ট্রিকসের চেয়ে পাঁচ ছয় গুণ বেশি ভিউ হয়। তাছাড়া একটু লক্ষ্য করেই দেখুন, কত্ত ডাউনলোডের সাইট গজিয়ে উঠেছে। মিউজিক, ভিডিও, মুভি, অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস, ওয়ালপেপার, আহা আরও কত্ত কি! এক কথায় ডাউনলোডের সাইটগুলো বাঙ্গালি আমজনতা ইন্টারনেট ইউজারদের কাছে অপরিহার্য এবং খুবই জনপ্রিয়।

#৩ বিভিন্ন পরীক্ষার রেজাল্ট দেখার সাইট

মৌসুমী ব্যবসায়ের সাথে আপনারা পরিচিত আছেন? রেজাল্ট দেখার সাইটগুলোকে আমি মৌসুমী ব্যবসায়ের সাথেই কিছুটা তুলনা করব। কিছুদিন পর পর কোন না কোন পরীক্ষা লেগেই থাকে দেশে। আর সেগুলোর রেজাল্ট এখন সব সাধারনত অনলাইনেই প্রকাশ হয়ে থাকে। আর সেগুলোর খবরাখবর দেখার সাইটগুলো অনেক পপুলার। দেখবেন ওমুক পরীক্ষার ফল, তমুক পরীক্ষার ফল প্রকাশের খবর সম্বলিত কিছু সাইট আছে। হুম, আমি সেগুলো সাইটের কথাই বলছি। অবশ্যই আমি নিজের চোখে দেখা অভিজ্ঞতাতেই এই সাইটগুলো সম্পর্কে বলছি। যেমন ধরুন, আমার ব্যক্তিগত ব্লগটায় প্রায় সব ধরনের পোস্টই করি। তাই পরীক্ষার ফলাফল নিয়েও পোস্ট করে থাকি। অন্য সাধারন দিনগুলোতে আমার ব্লগে সাধারনত ১০ থেকে ৩০ জনের মতো সবসময় অনলাইন ভিজিটর থাকে। কিন্তু পাবলিক পরীক্ষার রেজাল্টের দিনগুলোতে আমার চোখ কপালে উঠে। কারণ সেই দিনগুলোতে সারাদিনই ১০০ থেকে ১৫০ জনের মতো অনলাইন ভিজিটর থাকে। তাহলে বুঝেন আমার ব্লগটি শুধু রেজাল্ট পাবলিশ সংক্রান্ত না হলেও এরকম পপুলার হয়ে উঠে সেই দিনগুলোতে। এতে সহজই বুঝা যায়, রেজাল্ট নিয়ে যেসব সাইটগুলো আছে তারা কিরকম জনপ্রিয়!

আজ এখানেই থামছি। আসলে লেখার কিছু পাচ্ছিলাম না তো তাই সামান্য ব্যক্তিগত গবেষণার ফল তুলে ধরলাম। এই পোস্টে কোন নির্দিষ্ট ওয়েব সাইটের জনপ্রিয়তার কথা উল্লেখ করিনি। আমি ওয়েব সাইটের ক্যাটাগরির জনপ্রিয়তা তুলে ধরার চেস্টা করলাম। বাংলাদেশে নব্য জনপ্রিয়তার শ্রেনীতে নতুন এক ক্যাটাগরি ঠুকেছে! আর তা হল, অনলাইন নিউজপেপার। যাক সেটা এই পোস্টে আনলাম না। আপনার মতামতগুলোও তুলে ধরবেন। ধন্যবাদ...